পাস্তুরিত দুধ পরীক্ষার প্রতিবেদনের শুনানি ২৮ জুলাই

0
11

বিএসটিআইয়ের লাইসেন্সধারী কম্পানির পাস্তুরিত দুধে ব্যাকটেরিয়া, অ্যান্টিবায়োটিক, ফরমালিন, ডিটারজেন্ট, কলিফর্ম ইত্যাদি ক্ষতিকর উপাদান আছে কি না, সে বিষয়ে চারটি প্রতিষ্ঠানের ল্যাবের পরীক্ষা প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করতে সময় পেয়েছে বিএসটিআই।

বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের ল্যাবরেটরি (সায়েন্স ল্যাব), আইসিডিডিআরবির ল্যাবরেটরি, বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের (সাভার) ল্যাবরেটরি এবং জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের ন্যাশনাল ফুড সেফটি ল্যাবরেটরির প্রতিবেদন আগামী ২৮ জুলাইয়ের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে (এফিডেবিট আকারে) দাখিল করতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ বুধবার এ আদেশ দেন। আইনজীবীদের সময় আবেদনে এ আদেশ দিয়েছেন আদালত। আগামী ২৮ জুলাই পরবর্তী শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বিএসটিআইয়ের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার সরকার এম আর হাসান। রিট আবেদনকারীপক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার অনিক আর হক।

বুধবার সকালের মধ্যে তিনটি প্রতিষ্ঠানের প্রতিবেদন আদালতে এফিডেবিট আকারে দাখিল করার জন্য বিএসটিআইয়ের প্রতি নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

বিএসটিআই’র আইনজীবী ব্যারিস্টার সরকার এম আর হাসান আদালতকে জানান, জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের ন্যাশনাল ফুড সেফটি ল্যাবরেটরির প্রতিবেদন পাওয়া গেছে। এটা এফিডেবিটের জন্য সময় চাচ্ছি।

এ সময় রিট আবেদনকারীর আইনজীবী ব্যারিস্টার অনিক আর হক বলেন, চারটি ল্যাবের প্রতিবেদন দেখতে সময় দরকার। এজন্য সময় চাচ্ছি। এ সময় আদালত আগামী রবিবার পরবর্তী শুনানি ও আদেশের জন্য দিন ধার্য করে আদেশ দেন। আদালত এ সময়ের মধ্যে ল্যাবের প্রতিবেদন এফিডেবিট আকারে দাখিল করতে বিএসটিআইকে নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, আগেরদিন মঙ্গলবার বিএসটিআই জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের ন্যাশনাল ফুড সেফটি ল্যাবরেটরির প্রতিবেদন ছাড়া অপর তিনটি প্রতিষ্ঠানের প্রতিবেদন আদালতকে দেখতে দেন। আদালত রিপোর্টগুলো দেখার পর মূল কপি বিএসটিআই’র আইনজীবীকে ফেরত দেন। একসেট ফটোকপি নিজেদের কাছে রেখে দেন আদালত।

আদালত বলেন, এই প্রতিবেদন আপাতত আমাদের, আপনাদের (বিএসটিআই ও রিট আবেদনকারীপক্ষের আইনজীবী) মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকুক। হলফনামা আকারে প্রতিবেদন দাখিল করার পর দেখা যাবে। একারণে পরীক্ষা প্রতিবেদনে কি পাওয়া গেছে সে বিষয়ে কোনো আইনজীবী গণমাধ্যমের কাছে মুখ খোলেননি।

হাইকোর্ট গত ১৪ জুলাই এক আদেশে বাজার থেকে দৈবচয়নের ভিত্তিতে দুধের নমুনা সংগ্রহ করে তা চারটি পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করতে নির্দেশ দেন। এই নির্দেশ মেনে বাজার থেকে নমুনা সংগ্রহ করে চারটি ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়। এরপর তা আদালতে দাখিল করা হয়।

পাস্তুরিত দুধ নিয়ে আইসিডিডিআর’বি-এর দেওয়া গবেষণার ফল নিয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে রিট আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. তানভীর আহমেদ। এই রিট আবেদনে গতবছর ২১ মে এক আদেশে বিশেষজ্ঞ ও গবেষকদের নিয়ে কমিটি গঠন করে বাজারে থাকা পাস্তুরিত দুধ পরীক্ষা করে প্রতিবেদন দিতে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সচিব এবং বিএসটিআই’র মহাপরিচালককে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এরই ধারাবাহিকতায় আদালতের আদেশে চারটি ল্যাবে দুধের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here